ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২০ সফর ১৪৪৩

বিভীষিকাময় ৯/১১'র, ২০ তম বার্ষিকী



বিভীষিকাময়  ৯/১১'র, ২০ তম  বার্ষিকী

অসীম বেনেডিক্ট পামার: ১১ই সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্ক থেকে এ এফ পির সংবাদ মাধমের এক প্রতিবেদনে প্রকাশ,  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের  ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলার ২০ তম বার্ষিকী আজ, আজ শনিবার এই দিনে  প্রায় ৩০০০ মানুষকে ,হত্যার মধ্য দিয়ে  বিশ্বকে এক নতুন রূপ দেওয়ার হৃদয়বিদারক ঘটনার  সৃষ্টি করেছিল। এরই ধারাবাহিকতায় পশ্চিমা বিশ্বকে ইরাক এবং আফগানিস্তানে ব্যয়বহুল যুদ্ধে নিমজ্জিত করেছিল।

 জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস বলেন, জাতিসংঘ জীবিতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানায় তাদের যাদের জীবন নিয়ে চলার জন্য শারীরিক ও মানসিক দাগ কাটিয়ে উঠতে হয়েছে। ঘৃণা প্রদংশনের মাধ্যমে বলছি, যারা নিজেদেরকে ক্ষতির পথে নিয়ে গিয়ে মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছিল।  অনেকে চূড়ান্ত ত্যাগ স্বীকার করেছিল মানবতা ও সহমর্মিতার উদাহরণ দিয়েছিল সেই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে।

হোয়াইট  হাউস  জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট বাইডেন এবং ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন  শনিবার প্রতিটি স্থানে বিনম্র শ্রদ্ধায় থামবেন এবং হারানো জীবনের সম্মান ও স্মরণে কিছুক্ষন নীরবতা পালন করেন। রাষ্ট্রপতি গুরুত্বপূর্ণ এই দিনটির  জন্য দীর্ঘ অপেক্ষা করছিলেন। বলেছেন, দেশের সকল কূটনীতিকদের  একত্রিত করেছিল এই ১১ই সেপ্টেম্বর ২০০১ সন্ত্রাসী হামলার মধ্য দিয়ে। ব্লিংকেন বলেন ২০ বছর পর আজ  চারপাশে তাকিয়ে আমরা দেখতে পাচ্ছি কিভাবে আক্রমণগুলি আমাদের পরিবর্তন করেছে এবং আমাদের কূটনীতিতে পরিবর্তন এনেছে পৃথিবীকে সুন্দর ও  নিরাপদ রাখার জন্য যা সবাই আমরা এর ফল ভোগ করছি।

এক মুহুর্তের ঐক্যের সভাপতিত্ব করার পরিবর্তে বাইডেন বিশৃঙ্খল কাবুল থেকে দেশকে সরিয়ে নেওয়ার একটা কঠিন পথ অতিক্রম করেছেন যে দেশ শান্তিতে বিশেষসী নয় যা জানে  শুধু কাপুরুষের মত আত্মঘাতী বোমা হামলা করতে ও হতাশার মানসিকতা নিজেকে বাঁচিয়ে রাখতে।

ক্ষতিগ্রস্তদের আত্মীয়দের জন্য, বার্ষিকী, বরাবরের মতো, তাদের প্রিয়জনদের স্মৃতি বাঁচিয়ে রাখার বিষয়ে। মৃতদের স্মরণে রাষ্ট্রপতি হিসেবে একটি  কথাই বলবো আমেরিকা পার্ল হারবারের কথা কখনোই ভুলে যায়নি এবং আমেরিকা ৯/১১ সম্পর্কে কখনোই ভুলবে না।


   আরও সংবাদ